কর্মক’র্তাদের কাছে ছা’ত্রীদের শারীরিক স’ম্পর্কে জন্য পাঠান শিক্ষিকা

নির্মলা দেবী একটি কলেজের অধ্যাপক। কলেজ সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মক’র্তাদের সঙ্গে তিনি তার ছা’ত্রীদের শারীরিক স’ম্পর্ক তৈরি করে দেওয়ার কাজ করতেন। অ’ভিযোগ পাওয়ার পর ১১ মাস আগে নির্মলা দেবীকে গ্রে’ফতার করে পু’লিশ। বুধবার ভা’রতের তামিলনাডুর হাই’কোর্ট তাকে জামিন দিয়েছেন। ভা’রতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, মাধুরাই কামা’রাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মক’র্তাদের সঙ্গে ছা’ত্রীদের শারীরিক স’ম্পর্কের সুযোগ করে দিতেন নির্মলা দেবী। আর এ কাজ তিনি করতেন পরীক্ষায় ছা’ত্রীদের ভালো ফল পাইয়ে দেওয়ার লো’ভ দেখিয়ে। নির্মলা দেবীর বি’রুদ্ধে এমন আভিযোগ আসার পর তাকে কলেজ থেকে বহিষ্কার করা হয়। তিনি ছিলেন ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যু’ক্ত দেভাঙ্গা আর্টস কলেজের সহযোগী অধ্যাপক। শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একটি অডিওবার্তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফাঁ’স হয়ে গেলে তার এ কুকর্মের কথা বেরিয়ে আসে। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর নির্মলা দেবীর বি’রুদ্ধে বেআইনি কর্মকা’ণ্ডের সঙ্গে জ’ড়িত থাকার অ’ভিযোগ আনে কলেজ কর্তৃপক্ষ। কলেজের অ’ভিযোগের প্রেক্ষিতে গত বছরের এপ্রিলে পু’লিশ তাকে গ্রে’ফতার করে। গ্রে’ফতারের ১১ মাস পর মঙ্গলবার মাদ্রাজ হাই’কোর্ট তাকে জামিন দেন। মাদ্রাজ হাই’কোর্ট তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। তবে ত’দন্ত কাজে পু’লিশকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য তাকে নির্দেশ দিয়েছেন আ’দালত। তাছাড়া মা’মলার রায় না হওয়া পর্যন্ত তিনি কোনো সংবাদমাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দিতে পারবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন আ’দালত।

Leave a Comment